কৃষকের হাসি কেড়ে নিল শিলাবৃষ্টি
বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ০১:৩৩

কৃষকের হাসি কেড়ে নিল শিলাবৃষ্টি

সৈয়দ হেলাল আহমদ বাদশা, গোয়াইনঘাট

প্রকাশিত: ০৬/০৫/২০২৪ ০৩:৪৩:১৫

কৃষকের হাসি কেড়ে নিল শিলাবৃষ্টি


সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলায় হঠাৎ ব্যাপক শিলাবৃষ্টি ও কালবৈশাখী ঝড়ে জমির  পাকা বোরো ধান শীষ থেকে ঝরে পড়ে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

রোববার ৫ মে বিকেল ৫টার দিকে উপজেলার জাফলং, সদর, রুস্তমপুর ও নবগঠিত বিছানাকান্দি ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় কালবৈশাখী ঝড়ের সঙ্গে ব্যাপক শিলাবৃষ্টি শুরু হয়। এ সময় উপজেলার রুস্তমপুর ও বিছনাকান্দি ইউনিয়নের ১০/১৫ মিনিটের শিলা বৃষ্টিতে  শতাধিক কৃষকের জমির পাকা বরো ধান ব্যাপকভাবে ক্ষতি হয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, যেসব জমির পাকা বোরো ধান ২/১ দিনের মধ্যে কাটার কথা  হঠাৎ শিলাবৃষ্টিতে ধানের শিষ থেকে বেশিরভাগই ধান ঝরে জমিনে পড়ে গেছে। জমির পাকা ধানগুলো ঘরে তোলার আগেই শিলাবৃষ্টির কবলে পড়ে এমন ক্ষতি যেনো কৃষকদের মুখে চিন্তার ভাঁজ পড়েছে। তাছাড়া এই শিলাবৃষ্টিতে মৌসুমি ফল ও গাছ-গাছালিসহ টিন সেট ঘরের টিনের ক্ষতি হয়েছে বলে জানা গেছে।উপজেলার পশ্চিম আলীরগাঁও ইউনিয়নের সাতাইং বার্কীপুর এলাকার কয়েকস্হানে টিনের ঘরের চাল ফুটো হয়ে গেছে।

উপজেলার রুস্তমপুর ইউনিয়নের কুনকিরি গ্রামের কৃষক সুলতান মনসুর জানান, তার চার বিঘা জমির পাকাধান একেবারে ঝরে পড়ে গেছে কাটার কোন অবস্থা নেই কাচি লাগানো যাবে না,এছাড়া আরো শতাধিক কৃষক  পরিবারের জমির পাকা ধানের একই অবস্থা।নবগঠিত বিছনাকান্দি ইউনিয়নের বগাইয়া গ্রামের সমাজকর্মি আল আমিন জানান,বগাইয়া হাওরে দুইশ বিঘা জমির পাকা ধানে কাছি লাগানোর কোন অবস্থায় নেই।

ফারুক আহমদ,  হোসেন মিয়া, নুরুল ইসলাম,  হাজি ফরিদ উদ্দিন,মাস্টার সিরাজুল ইসলাম,  হারুন মিয়া,  ইউসুফ মিয়া, তাজুল মিয়া, জনু মিয়াসহ শত শত কৃষকের মুখের হাসি কেড়ে নিয়েছি শিলাবৃষ্টি।

এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত উপজেলায় বৈরী আবহাওয়া অব্যাহত রয়েছে এবং আজ আবার বেলা একটায় উপজেলার তিন নং পূর্ব জাফলং ইউনিয়নে শিলা বৃষ্টি হয়েছে।

উপজেলা কৃষি অফিস জানা যায়,গোয়াইনঘাটে হাওরের ৯৮ শতাংশ এবং উপরের ৬৫ শতাংশ বোরো ধান কর্তন হয়েছে। এ বছর উপজেলায় বোরো আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৯ হাজার ৭শত ৩২ হেক্টর অর্জন হয়েছে ৯ হাজার ৮ শত ১৯হেক্টর।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রায়হান পারভেজ রনি বলেন,এ পর্যন্ত হাওরের ৯৮ শতাংশ ও উপরের ৬৫% শতাংশ  জমির ধান কর্তন হয়েছে। তবে হঠাৎ শিলাবৃষ্টিতে উপজেলার পশ্চিম আলিরগাঁও, পূর্ব আলীরগাঁও, মধ্য জাফলং, সদর, রুস্তমপুর ও বিছনাকান্দি ইউনিয়নসহ মোট ২৫২ হেক্টর বোরো ধান আংশিক ও ৩ হেক্টর গ্রীষ্মকালীন সবজি ফসল ক্ষতি হয়েছে।


এলএইচ


This is the free demo result. For a full version of this website, please go to Website Downloader