ওসমানীনগরে গভীর রাতে গণছিনতাই, আহত ৩
বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১:১১

ওসমানীনগরে গভীর রাতে গণছিনতাই, আহত ৩

ওসমানীনগর প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১১/০২/২০২৪ ০৮:০০:১৩

ওসমানীনগরে গভীর রাতে গণছিনতাই, আহত ৩

প্রতিকী ছবি


ওসমানীনগর উপজেলার গোয়ালাবাজার গয়নাঘাট থেকে বালাগঞ্জ রাস্তায় গভীর রাতে গাড়ি ও পথচারির গতিরোধ করে গণছিনতাই করে টাকা ও মূল্যবান সামগ্রী ছিনিয়ে নিয়ে গেছে একদল অস্ত্রধারী। এসময় অস্ত্রধারীদের হামলায় রক্তাক্ত আহত হন বালাগঞ্জ উপজেলার নসিওরপুর গ্রামের পাবেল আহমদ (২০)।

গতকাল শনিবার দিবাগত রাতের প্রায় ১টা থেকে গোয়ালাবাজার-বালাগঞ্জ সড়কের কালাসারা হাওরের ব্রীজের উপর এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, শনিবার দিবাগত রাত প্রায় ১টার দিকে ঘর ফেরা মানুষ বাড়ি ফিরছিলেন। এ সময় কালাসারা হাওর পাড়ে ব্রীজের কাছে বাঁশ দিয়ে একদল অস্ত্রধারীরা গতিরোধ করে পথচারি, অটোরিক্সা ও মোটরসাইকেল আটক করে অস্ত্রেরমুখে তাদেরকে কাছ থেকে মোবাইল ও টাকা পয়সা চিনিয়ে নিয়ে যাত্রী ও পথচারীদের বেধে রাস্তা থেকে নামিয়ে অস্ত্রের মুখে আটকে রাখে অন্যদের ছিনতাই করার জন্য। এ সময় নসিওরপুর গ্রামের পাবেল নামের একজন কৌশলে তার ভাইয়ের কাছে মোবাইলে কল করে জানালে অস্ত্রধারীরা তাকের গুরুতর আহত করে। একই গ্রামের ফয়জুল ইসলাম ও হস্তিদুর গ্রামের দিলওয়ার হোসেনসহ আরো অনেকে আহত। খবরটি গ্রামে পৌছালে মসজিদের মাইকে ঘোষণা দিয়ে হস্তিদুর ও নসিওরপুর গ্রামের লোকজন ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন। টের পেয়ে ছিনতাইকারীরা পালিয়ে যায়। গ্রামবাসীরা রাতের বিভিন্ন সময়ে বাধা অবস্থায় পথচারিদের হাতের বাঁধন খুলেন এবং আহত পাবেল মিয়াকে স্থানীয় একটি ক্লিনিকে নিয়ে যান। খবর পেয়ে ওসমানীনগর থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে।

পাবেল আহমদ, দিলওয়ার মিয়া ও আলামীন জানান, আমরা বাজার থেকে যাওয়ার পথে প্রায় ১০ জন ডাকাত আমাদেরকে অস্ত্রের মূখে জিম্মি করে সব কিছু নিয়ে যায় এবং আমাদেরকে মারধর করে। অনুমান ১৫/২০জন লোককে আটক করে টাকা ও মোবাইল নিয়ে যায়।

হস্তিদুর গ্রামের সাবেক মেম্বার আজির উদ্দিন বলেন, এ ঘটনার খবর পেয়ে হস্তিদুর ও নসিওরপুর গ্রামের লোকজন এসে বাধা অবস্থায় প্রায় ১৫ জনের হাত ও পায়ের বাধন খোলে উদ্ধার করি এবং রক্তাক্ত অবস্থায় একজনকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে প্রেরণ করি।

ওসমনানীনগর থানার ওসি রাশেদুল হক বলেন, রাতে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। এখন পর্যন্ত লিখিতভাবে কেউ অভিযোগ করে নি। তবে বিষয়টি নিয়ে আমরা কাজ করছি।

জৈন্তাবার্তা/জেএ


This is the free demo result. For a full version of this website, please go to Website Downloader