তছনছ হয়ে গেল আলভেজের জীবন
মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ১১:৪২

তছনছ হয়ে গেল আলভেজের জীবন

জৈন্তা বার্তা ডেস্ক

প্রকাশিত: ২২/০২/২০২৪ ০৭:৩০:৪৭

তছনছ হয়ে গেল আলভেজের জীবন

ছবি: সংগৃহীত


বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ারটা দারুণভাবেই শেষ হতে পারত ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্ডার দানি আলভেজের। ফুটবলাঙ্গনে শেষ মুহূর্তের সময়ে তাকে সম্মান দেখিয়ে কাতার বিশ্বকাপের দলে রেখেছিল পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। বড় বড় ক্লাবের হয়ে খেলায় জিতেছেন অসংখ্য মেজর ট্রফি। তবে মাঠকে বিদায় বলার আগেই তার গায়ে লেগে গেছে কলঙ্কের দাগ। ২০২২ বিশ্বকাপের পর ছুটি কাটাতে স্পেনের বার্সেলোনায় গিয়ে এক নারীর সঙ্গে অন্তরঙ্গতায় জড়িয়ে পড়েন তিনি। পরবর্তীতে সেই নারী দানি আলভেজের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলার অভিযোগ আনেন।

প্রায় দেড় বছর ধরে ধর্ষণকাণ্ডের বিচার কার্যক্রম চলার পর জেলে অন্তরীণ থাকা বার্সেলোনার সাবেক এই তারকাকে সাড়ে চার বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে স্পেনের আদালত। একইসঙ্গে ভুক্তভোগী তরুণীকে দেড় লাখ ইউরো ক্ষতিপূরণ দিতেও বলা হয়েছে আলভেজকে।

এক বিবৃতিতে আদালত জানিয়েছেন, ‘শারীরিক সম্পর্কের ঘটনায় ভুক্তভোগীর কোনো সম্মতি ছিল না বলে প্রমাণিত হওয়ায় এই রায় দেওয়া হয়েছে। একইসঙ্গে ভুক্তভোগীর সাক্ষ্য প্রমাণের ভিত্তিতে প্রমাণিত হয়েছে যে তিনি ধর্ষিত হয়েছেন।’

ফুটবল ইতিহাসে সবচেয়ে সমৃদ্ধ ট্রফি ক্যাবিনেটের একটি ব্রাজিল তারকা দানি আলভেজের। ব্রাজিলের জার্সিতে কিংবা ইউরোপের ক্লাব পাড়ায়, দানি আলভেজের মত সৃষ্টিশীল রাইটব্যাক পাওয়া ছিল কষ্টকর। ক্যারিয়ারের লম্বা সময় পার করেছেন বার্সেলোনায়। এ ছাড়া পা রেখেছেন য়্যুভেন্তাস, পিএসজির মত শীর্ষ পর্যায়ের ক্লাবেও। তবে ক্যারিয়ারের সায়াহ্নে এসে যেন সুখকর কিছু ঘটল না দানি আলভেজের সঙ্গে।

ইংরেজি নববর্ষ উদযাপনে স্পেনের বার্সেলোনায় অবস্থান করার সময় ২০২২ সালের ৩০ ডিসেম্বর একটি নাইটক্লাবের ভিআইপি বাথরুমে আলভেজ তাকে ধর্ষণ করেছেন বলে অভিযোগ তোলেন এক নারী। এরপর ২০২৩ সালের জানুয়ারিতেই এই ব্রাজিলিয়ানকে আটক করে দেশটির পুলিশ। যদিও শুরু থেকেই নিজেকে নির্দোষ দাবি করে আসছিলেন ৪০ বছর বয়সী এই তারকা। নিজেদের অন্তরঙ্গতার কথা অবশ্য স্বীকার করে আলভেজ বলেছিলেন, অভিযোগকারীর সঙ্গে পারস্পরিক সম্মতিতে তাদের মধ্যে যৌন সম্পর্ক গড়ে উঠেছিল। শুরুতে অবশ্য ওই নারীকে চেনার কথাও অস্বীকার করেছিলেন আলভেজ।

২০২২ সালের ৩০ ডিসেম্বর বার্সেলোনার একটি নাইটক্লাবের ভিআইপি বাথরুমে আলভেজ তাকে ধর্ষণ করেছেন বলে অভিযোগ তুলেছিলেন এক নারী। এরপর ২০২৩ সালের জানুয়ারিতেই এই ব্রাজিলিয়ানকে আটক করে দেশটির পুলিশ। যদিও শুরু থেকেই নিজেকে নির্দোষ দাবি করে আসছিলেন আলভেজ। পরে অবশ্য নিজেদের অন্তরঙ্গতার কথা স্বীকার করে আলভেজ বলেছিলেন, অভিযোগকারীর সঙ্গে পারস্পরিক সম্মতিতে তাদের মধ্যে যৌন সম্পর্ক গড়ে উঠেছিল।

গেল বছরের জুনে প্রকাশিত বার্সেলোনা ভিত্তিক সংবাদপত্র লা ভ্যানগার্ডিয়াকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে আলভেজ বলেছিলেন, ‘সাটন নাইটক্লাবের ভিআইপি এলাকার বাথরুমে সেই রাতে কী ঘটেছিল সে সম্পর্কে আমার সত্যিই পরিষ্কার মনে আছে। কি ঘটেছে এবং কি ঘটেনি। যেটি ঘটেনি তা হলো, ওই ঘটনার জন্য তাকে জোরাজুরি করা হয়নি।’ অবশ্য আলভেজের বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল নাইটক্লাবের ভিআইপি সেকশনের টয়লেটে যেতে ওই তরুণীকে প্রলুব্ধ করেছিলেন তিনি। যদিও তার দাবি— তিনি ভুক্তভোগীকে বলেছিলেন, তুমি চাইলে চলে যেতে পারো। তবে যাইহোক ওই ঘটনায় তরুণী সম্মতি দেননি বলে প্রমাণ পেয়েছেন আদালত। আলভেজ বেশ কয়েকবার জামিনের আবেদন জানালেও তাকে জামিন দিতে অস্বীকার করেন আদালত। কারণ বিদেশের কোনো আদালতে অভিযুক্ত হলেও ব্রাজিল কখনও তার নাগরিককে সেই দেশের হাতে হস্তান্তর করে না।

ক্যারিয়ারে ‘ফুলস্টপ’!

স্পেনের আইন বলছে, অনলাইনে যৌন নির্যাতন থেকে ধর্ষণ অপরাধের জন্য আলাদা শাস্তির বিধান রয়েছে দেশটিতে। ধর্ষণের অভিযোগ প্রমাণিত হলে ১৫ বছরের কারাবাসের শাস্তিও হতে পারে। শেষ পর্যন্ত অবশ্য এত দীর্ঘ কারাদণ্ড হয়নি দানি আলভেজের। তবে তাতে কি! ব্রাজিলিয়ান ফুটবলারের জীবনটাই যে তছনছ হয়ে গেছে। ধর্ষণ কাণ্ডের পর তার ক্যারিয়ারে একপ্রকার ‘ফুলস্টপ’ পড়ে গেছে। গেল বছরের ২০ জানুয়ারি প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে আলভেজকে গ্রেফতারের পরপরই তার সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করে ম্যাক্সিকান ক্লাব পুমা ইউএনএএম।

গুঞ্জন উঠেছিল বিবাহ বিচ্ছেদেরও। গণমাধ্যমের খবরে জানা যায়, আলভেজকে গ্রেফতারের পর থেকেই ভেঙে পড়েন তার স্ত্রী হোয়ানা সাঞ্জ। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম থেকে মুছে ফেলেন সেলেসাও ডিফেন্ডারের সঙ্গে থাকা তার ছবিগুলোও। ব্রাজিলিয়ান তারকা ফুটবলারের কাছে নাকি ডিভোর্স চেয়েছিলেন তিনি। যদিও পরে ডিভোর্স চাওয়ার বিষয়টি অস্বীকার করা হয়। সবমিলিয়ে হয়ত দানি আলভেজের শেষটা দেখেই ফেলেছে ফুটবল বিশ্ব।

বার্সেলোনায় ২০০৮ থেকে ২০১৬ পর্যন্ত প্রথম মেয়াদে ক্লাবটির হয়ে ২৩টি শিরোপা জিতেছেন। পরে ২০২১-২২ মৌসুমেও ফিরেছিলেন। ব্রাজিলের হয়ে ১২৬ ম্যাচে ৮ গোল করেছেন। দুবার করে কোপা আমেরিকা ও কনফেডারেশন কাপ জিতেছেন দেশের হয়ে। ২০২১ সালে টোকিও অলিম্পিকে সোনাজয়ী ব্রাজিল দলের সদস্যও ছিলেন আলভেজ।

এম সি


This is the free demo result. For a full version of this website, please go to Website Downloader